সংবাদ শিরোনাম :
সংবাদ শিরোনাম :
দীর্ঘ যানজটে নাকাল যাত্রী ও চালক – গ্রামীন নিউজ২৪ লালমনিরহাটে দায়ের কোপে বৃদ্ধা মা রক্তাক্ত, ছেলে গ্রেফতার – গ্রামীন নিউজ২৪ গোবিন্দগঞ্জে ইয়াবা, পিস্তল ও এক রাউন্ড গুলিসহ এক মাদক কারবারী আটক – গ্রামীন নিউজ২৪ আজকে বিশ্ব করোনার আঘাতে বিপর্যস্ত – গ্রামীন নিউজ২৪ হেলেনা জাহাঙ্গীরের বিরুদ্ধে পল্লবী থানায় মামলা করেছে র‍্যাব – গ্রামীন নিউজ২৪ সাদুল্লাপুরে ইউএনও, ওসি’র বিদায়ী সংবর্ধনা – গ্রামীন নিউজ২৪ দূরপাল্লার গাড়ি না চলায়,ভোগান্তিতে শ্রমিকরা – গ্রামীন নিউজ২৪ করোনায় আবারো মৃত্যু ২১৮ – গ্রামীন নিউজ২৪ সুন্দরবনে স্মার্ট টিমের অভিযানে ১৩ টি নৌকা আটক – গ্রামীন নিউজ২৪ ডুমুরিয়ায় প্রতিটি ঘরে বিদ্যুতের আলোয় আলোকিত —ডিজিএম মোঃ আবদুল মতিন – গ্রামীন নিউজ২৪
বিজ্ঞপ্তি :
আমাদের সাইটের উন্নয়ন মূলক কাজ চলছে... সাথেই থাকুন! গ্রামীন নিউজ২৪টিভি পরিবারের জন্য দেশব্যাপী প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে। আগ্রহীরা যোগাযোগ করুন 01729188818, সিভি ইমেইল করুনঃ grameennews24tv@gmail.com

ভূরুঙ্গামারী- উপজেলাবাসী করোনা ভাইরাসে আতঙ্কিত – গ্রামীন নিউজ২৪

ওবায়েদ, বিশেষ প্রতিনিধিঃ / ১৬২৪ বার পঠিত
প্রকাশের সময় : রবিবার, ২০ জুন, ২০২১, ৫:৩২ পূর্বাহ্ন

আশংকাজনক হারে বেড়ে গেছে জ্বরের রোগীর সংখ্যা। প্রতিটি পরিবারে অন্তত একজন সদস্য সর্দি,জ্বর, শ্বাসকষ্ট ও গলা ব্যথায় ভুগছেন বলে ধারণা করা হচ্ছে। গত দুই সপ্তাহের ব্যবধানে উপজেলায় করোনা সনাক্তের হার বেড়ে দাড়িয়েছে প্রায় ৫৫% হঠাৎ করে সংক্রমণ বেড়ে যাওয়ায় দুশ্চিন্তায় রয়েছে স্থানীয় প্রসাশন।

উপজেলার বিভিন্ন ওষুধের দোকানগুলোতে খোঁজ নিয়ে দেখা গেছে, গত কয়েক দিনে সর্দি, জ্বর,কাশি, শ্বাসকষ্ট ও গলা ব্যাথার ওষুধ বিক্রি হয়েছে স্বাভাবিকের চাইতে কয়েকগুন বেশি। সরবরাহের কমতি থাকায় এসব রোগের প্রয়োজনীয় ওষুধ সরবরাহ করতে রীতিমত হিমশিম খাচ্ছেন তারা। এরই মধ্যে এসব উপসর্গ নিয়ে মৃত্যু বরণও করেছেন বেশ কযেক জন। করোনার নমুনা দিতে মানুষের অনীহা থাকায় উপজেলায় করোনা রোগির প্রকৃত সংখ্যা নির্ণয় করতে পারছেনা স্বাস্থ্য বিভাগ।

উপজেলা স্বাস্থ্য বিভাগের তথ্য অনুযায়ী, সর্বশেষ ১১জনের নমুনা পরিক্ষায় ৯ জন রোগি করোনা পজিটিভ হয়েছেন। উপজেলায় এখন পর্যন্ত করোনা পজিটিভ হয়েছেন ১০০ জন। এদের মধ্যে মারা গেছেন ৩ জন। সর্দি জ্বর, গলা ব্যাথা নিয়ে গত সাত দিনে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন প্রায় ১০০ এর বেশি রোগি।

উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা আবু সাজ্জাদ মোহাম্মদ সায়েম বলেন, সংক্রমণের এই হার উদ্বেগজনক। তবে, জ্বর সর্দি মানেই করোনা নয়। এগুলোর বেশির ভাগই সিজনাল ফ্লু। সর্বশেষ ২০ জনের নমুনা পাঠানো হয়েছে। তাদের নমুনা ফলাফলের উপর নির্ভর করে ব্যাবস্থা নেয়া হবে। সংক্রমণ ঠেকাতে উপজেলা করোনা প্রতিরোধ কমিটি প্রয়োজনীয় সকল কর্মসূচি গ্রহন করেছে। তিনি স্বাস্থ্য বিধি মেনে চলার জন্য সকলকে অনুরোধ করেন।

উপজেলায় হঠাৎ করে করোনা প্রকোপ বেড়ে যাওয়ার কারণ হিসেবে ভারত সীমান্ত দিয়ে গরু পারাপার ও স্থল বন্দরে ভারতীয় পণ্যবাহী ট্রাকের অবাদ চলাচলকে দায়ী করছেন অনেকে। এ বিষয়ে ডাঃ সায়েম বলেন সোনাহাট স্থল বন্দরে স্বাস্থ্য বিধি নিয়ন্ত্রণে তাদের মেডিকেল টিম তৎপর রয়েছে।

উপজেলা নির্বাহি অফিসার দীপক কুমার দেব শর্মা বলেন, উদ্ভুত পরিস্থিতিতে সীমান্তে তৎপরতা বাড়াতে বিজিবিকে সুপারিশ করা হয়েছে। ভারতের পশ্চিম বঙ্গে লক ডাউন থাকায় সোনাহাট স্থল বন্দরের কার্যক্রম বর্তমানে অনেকটাই কমে গেছে। তারপরও যে কয়েকটি মালবাহী ট্রাক বাংলাদেশে প্রবেশ করছে সেগুলো নিয়ন্ত্রণে কাজ করছে মেডিকেল টিম


এ জাতীয় আরো সংবাদ
এক ক্লিকে বিভাগের খবর