সংবাদ শিরোনাম :
সংবাদ শিরোনাম :
সুন্দরবনের দুই জীবন্ত কিংবদন্তি – গ্রামীন নিউজ২৪ বাগমারায় পানিতে ডুবে এক শিশুর মৃত্যু – গ্রামীন নিউজ২৪ লকডাউনে ‘ডোরস্টেপ ডেলিভারি’দিচ্ছে ভিভো হটলাইনে কল করলেই পৌঁছে যাবে ভিভো স্মার্টফোন – গ্রামীন নিউজ২৪ ঠাকুরগাঁওয়ে বালিয়াডাঙ্গীতে মসজিদ উন্নয়নের জন্য অনুদান দিলেন এমপি পুত্র – গ্রামীন নিউজ২৪ দেশে আইপি টিভির অনুমোদন নেই তথ্য ও সম্প্রচারমন্ত্রী হাছান মাহমুদ – গ্রামীন নিউজ২৪ করোনায় ২৪৬ জনের মৃত্যু – গ্রামীন নিউজ২৪ ঠাকুরগাঁওয়ে ৩ কেজি গাঁজা উদ্ধার ও ভ্রাম্যমাণ আদালতে সাজা – গ্রামীন নিউজ২৪ কয়রায় ভারী বর্ষনে রোপা আমন মৌসুমের বীজতলা নষ্ট হয়ে কৃষকের ব্যাপক ক্ষতি – গ্রামীন নিউজ২৪ করোনায় ক্ষতিগ্রস্তদের মাঝে এফডিএ’র ত্রাণ সহায়তা – গ্রামীন নিউজ২৪ শিবগঞ্জে নিখোঁজ গৃহবধূর লাশ ভাসছিল পুকুরে – গ্রামীন নিউজ২৪
বিজ্ঞপ্তি :
আমাদের সাইটের উন্নয়ন মূলক কাজ চলছে... সাথেই থাকুন! গ্রামীন নিউজ২৪টিভি পরিবারের জন্য দেশব্যাপী প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে। আগ্রহীরা যোগাযোগ করুন 01729188818, সিভি ইমেইল করুনঃ grameennews24tv@gmail.com

রাজশাহীর আদালতে তদন্তাধীন বিষয়ের তোয়াক্যা না করে প্রাচীর নির্মান – গ্রামীন নিউজ২৪

রাজশাহী প্রতিনিধি : / ৬২৯ বার পঠিত
প্রকাশের সময় : বৃহস্পতিবার, ১ জুলাই, ২০২১, ৮:৫৬ পূর্বাহ্ন

রাজশাহী মহানগরীর বড়বনগ্রাম খলিল সরকারের মোড়ে গত ৭ জুন সোমবার সেখপাড়া এলাকায় একটি বাগান থেকে আম পাড়াকে কেন্দ্র করে মারামারিতে ছয়জন আহত হয়েছিলো। এ ব্যাপারে নগরীর শাহ মখদুম থানায় দুই পক্ষের মামলা চলমান রয়েছে এবং তা এখনো তদন্তাধিন রয়েছে।

মামলা সূত্রে জানা যায়, গত ৭জুন সোমবার বড়বনগ্রাম মৌজায় নিজেদের ভোগ দখলীয় আম বাগানে নগরীর হাতেম খাঁ কলাবাগান এলাকার রিয়াজ সরদারের ছেলে এ.কে ফরহাদ রাসেল সরদার(৪০)ও আবুল বাশার রাহাত(৩০) এবং দরিখড়বোনা এলাকার মুত আমজাদের ছেলে কামাল হোসেন, (৪৫), বর্ণালীর মোড় এলাকা মৃত সাঈদ এর ছেলে মিজান হোসেন দিপু (২২), ও আসাম কালোনী এলাকার বজলুর রহমানের ছেলে আল আমিনকে (২৬) সাথে করে আম পাড়তে যান।
এসময়ে নগরীর বড়বনগ্রাম এলাকার জুগল ফকিরের ছেলে সামসুল আলম (৪২) ও এজাজুল (৩৭), ভাদু মন্ডলের ছেলে জমসেদ (৫৭), মকসেদ (৫২) হারান (৫৫), জমসেদ আলীর ছেলে সাইফুল ইসলাম (২৮), শফিকুল ইসলাম বিটন(২৭), গফুর (৩০), মকবুলের ছেলে গাফফার(৪০) ও শামীম, কালাম এর ছেলে বাবলু(৩৫), মকসেদ এর ছেলে শাওন (৩২) এবং রফিকসহ আরো ৩০-৪০ মিলে লাঠি-সোটা, জিআই পাইপ ও হাসুয়াসহ দেশীয় অন্যান্য অস্ত্র নিয়ে তাদের উপর অতর্কিত হামলা চালায় এবং আম পাড়ার বিনিময়ে চাঁদা দাবি করে। এরমধ্যে এ.কে ফরহাদ রাসেল সরদার(৪০)ও আবুল বাশার রাহাত(৩০) অবস্থা আশঙ্কাজনক হয়ে পড়লে উভয়ে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ৯দিন যাবৎ চিকিৎসাধীন ছিলেন। আর বাকী চারজনের মধ্যে দুইজনের হাতের কলারবোন্ড ভেঙ্গে গেছিলো বলে জানা যায়। বর্তমানে তারা চিকিৎসা নিয়ে সকলেই নিজ বাসায় অবস্থান করছেন।

এ ঘটনায় শাহ্ মখ্দুম থানায় রাসেল ও রাহাতের মামা জনি আহম্মেদ বাদী হয়ে নামীয় ১৩ জন সহ অজ্ঞাতনামা আরো ৩০ থেকে ৪০ জনের নামে মামলা দায়ের করেছিলেন যা এখনো কোর্টে বিচারাধীন রয়েছে। এজাহার আরো জানা যায়, তপশিলভূক্ত সম্পত্তি নিয়ে আসামীদের সাথে মামলা চলে আসছে।

তবে মামলার বিষয়ে শাহ্ মখ্দুম থানার অফিসার্স ইনচার্জ সাইফুল সরকারের নিকট জানতে চাইলে তিনি বলেন, এই ঘটনা নিয়ে উভয় পক্ষ মামলা করেছে। থানা কর্তৃপক্ষ ইতোমধ্যে উভয় পক্ষের পাঁচজনকে আটক করে।
মামলার বাদি জনি আহমেদ জানান, রামেক থেকে রাসেল ও রাহাতকে গত ১৩জুন চিকিৎসাধীন অবস্থায় আটক করে এবং তারা গত ২১তারিখে জামিনে জেলহাজত থেকে মুক্তি নিয়ে বের হয়। এরই মধ্যে ১৬দিন অতিবাহিত হয় এবং ২৩জুন রাহাত ও রাসেলের বাবা হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুবরণ করেন। তার ঠিক চার দিন পর ২৮জুন এলাকাবাসী নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক থানায় জানায় যে জমিটি নিয়ে বিবাদ সেই জমিতে তারা (আসামীরা) বাউন্ডারি উয়াল (দেয়াল) তৈরীর কাজ শুরু করেন ৪০জন লেবারের সহায়তায়। এমতাবস্থায় ঘটনার তদন্ত অফিসার শাহ্-মুখদুম থানার এস আই – সোহেল রানা তাৎক্ষনিক ঘটনাস্থলে হাজির হয়ে কোর্টের অধিনে মামলা থাকায় কাজটি বন্ধ করে এবং ঘটনার আসামী পক্ষকে কোর্টের নিয়ম অনুযায়ী তদন্তাধীন সম্পাত্তি (জমি-জমাতে) পরবর্তীতে কোন কাজ না করার নির্দেশ প্রদান করেন।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে তদন্ত অফিসার শাহ্-মুখদুম থানা পুলিশের এস আই- সোহেল রানা বলেন, গত ৭জুনের ঘটনায় দুই পক্ষই মামলা দায়ের করে এবং সেই ঘটনায় কয়েকজন হতাহত হয়। ঘটনার কিছুদিন পর ২৮জুন এলাকাবাসী সূত্রে জানাযায়, সেখানে কে বা কারা জমির উপর দেয়াল দেয়ার চেষ্টা করে এমন খবরের সূত্র ধরে আমরা (প্রশাসন) ঘটনা স্থলে যায় দেখা যায় সেখানে কিছু সংখ্যক লেবার ইট গাথছে। যেহেতু ঘটনাটি আদালতে তদন্তাধিন রয়েছে তাই আমরা সেখানে ইটের দেয়াল তুলতে দেইনি এবং সকল শ্রমিকদের ফেরত যেতে বলি। কে বা কারা ঘটনাটি ঘটিয়েছে (ইটের দেয়াল তুলছে) তাদেরও বের করা হবে বলে জানান তিনি।

এবিষয়ে আহত একে ফরহাদ রাসেলের সাথে কথা হয় আমাদের তিনি বলেন, প্রাচীর দিচ্ছে আসামী পক্ষের লোকজন এবং আদালতে তদন্তাধীন বিষয়ের উপর এমন কাজ করায় আমরা নিন্দা প্রকাশ করছি ও এঘটনার সাথে জড়িতদের দ্রুতবিচারের আওতায় এনে তাদের শাস্তির দাবি করছি কারণের আদালতের বিচারাধীন বিষয়ে কে বা কারা হস্তক্ষেপ করলোর তার সত্যতা বের করার জন্য প্রসাশনের দৃষ্টি আর্কষন করছি। ঘটনার সাথে ৩য় কোনো পক্ষ জড়িত থাকতে পারে বলেও আমরা ধারণা করছি এছাড়াও সাবেক কেন্দ্রীয় নেতা- নরুল ইসলাম ঠান্ডু, বিবাদি পক্ষের হয়ে সুপারিশ করছে এটি আমাদের মোটেও কাম্য ছিলোনা।


এ জাতীয় আরো সংবাদ
এক ক্লিকে বিভাগের খবর