সংবাদ শিরোনাম :
সংবাদ শিরোনাম :
ঠাকুরগাঁওয়ে আম গাছ থেকে গৃহকর্মীর ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার – গ্রামীন নিউজ২৪ ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় গাঁজাসহ আটক এক – গ্রামীন নিউজ২৪ যৌক্তিক কারণ দেখাতে না পারায় জরিমানা গুনতে হচ্ছে সড়কে – গ্রামীন নিউজ২৪ গত ২৪ ঘন্টায় রংপুর বিভাগে মৃত্যু ১০ শনাক্ত ২০২ – গ্রামীন নিউজ২৪ কঠোর লকডাউনের প্রথম দিন মনিটরিংএ নির্বাহী কর্মকর্তা ‌মামুন ‌- গ্রামীন নিউজ২৪ ফিল্ডিংএ বাংলাদেশ দল – গ্রামীন নিউজ২৪ ঝড়ো হাওয়ার শঙ্কায় সমুদ্রবন্দর গুলোতে ৩ নম্বর স্থানীয় সতর্ক সংকেত – গ্রামীন নিউজ২৪ কঠোর লকডাউনে ২৩ দফা নির্দেশনা – গ্রামীন নিউজ২৪ রামেক হাসপাতালে করোনায় ২৪ ঘন্টায় মৃত্যু ২২ – গ্রামীন নিউজ২৪ বাগেরহাটের ফকিরহাটে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ৬ – গ্রামীন নিউজ২৪
বিজ্ঞপ্তি :
আমাদের সাইটের উন্নয়ন মূলক কাজ চলছে... সাথেই থাকুন! গ্রামীন নিউজ২৪টিভি পরিবারের জন্য দেশব্যাপী প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে। আগ্রহীরা যোগাযোগ করুন 01729188818, সিভি ইমেইল করুনঃ grameennews24tv@gmail.com

ময়মনসিংহ, টাঙ্গাইল, যশোর ও বগুড়ায় করোনায় মৃত্যু ৪৪ – গ্রামীন নিউজ২৪

গ্রামীন নিউজ ডেস্কঃ / ৯৮৯৭ বার পঠিত
প্রকাশের সময় : রবিবার, ৪ জুলাই, ২০২১, ৪:০২ অপরাহ্ন

ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের করোনা ইউনিটে গত ২৪ ঘণ্টায় আরও ১১ জনের মৃত্যু হয়েছে। এর মধ্যে করোনা আক্রান্ত হয়ে ৬ জন এবং করোনার উপসর্গ নিয়ে আরও ৫ জন মারা যান।

হাসপাতালের করোনা ইউনিটের ফোকাল পারসন ডা. মহিউদ্দিন খান জানান, করোনা আক্রান্তে মৃতদের মধ্যে ময়মনসিংহের পাঁচজন ও টাঙ্গাইলের একজন রয়েছেন। উপসর্গ নিয়ে মৃতদের মধ্যে ময়মনসিংহের দুইজন, গাজীপুরের দুইজন ও জামালপুরের একজন রয়েছেন।
তিনি জানান, গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে ৩৭ জন ভর্তিসহ করোনার চিকিৎসা নিচ্ছেন ২৭২ জন। এর মধ্যে আইসিইউতে আছেন ২২ জন। জেলায় ২৪ ঘণ্টায় ৭১৭টি নমুনা পরীক্ষায় আরও ১৮৪ জনের করোনা পজিটিভ হয়েছে।

টাঙ্গাইলঃ
টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালে শনিবার সকাল থেকে রোববার সকা

ল পর্যন্ত করোনায় সংক্রমিত ও এই রোগের উপসর্গ নিয়ে ১১ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ সময়ে নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ১৯৫ জন।
চলতি জুলাই মাসের চারদিনে জেনারেল হাসপাতালে করোনায় আক্রান্ত ও উপসর্গ নিয়ে ৪৩ জনের মৃত্যু হলো। অধিকাংশ রোগী মারা যাচ্ছে অক্সিজেনের অভাবে।


হাসপাতালের আবাসিক চিকিৎসা কর্মকর্তা (আরএমও) শফিকুল ইসলাম জানান, এই হাসপাতালে হাইফ্লো নাজাল ক্যানুলা রয়েছে ১০টি। এর মধ্যে চারটি অকেজো। মাত্র ছয়টি হাইফ্লো নাজাল ক্যানুলা দিয়ে বিপুলসংখ্যক মুমূর্ষু রোগীকে সেবা সম্ভব হচ্ছে না। আরও অন্তত ২৫টি হাইফ্লো নাজাল ক্যানুলা থাকলে রোগীদের যথাযথভাবে সেবা দেওয়া যেত। এতে মৃত্যু হারও অনেক কম হতো।

রোববার সকালে সরেজমিন হাসপাতালে গিয়ে দেখা যায়, শয্যার অভাবে অনেক রোগী মেঝেতে থেকে চিকিৎসা নিচ্ছেন। অনেক রোগীর নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে (আইসিইউ) স্থানান্তর করা প্রয়োজন। কিন্তু ছয়টি আইসিইউ শয্যার সবগুলোতেই রোগী রয়েছে।
জেলা স্বাস্থ্য বিভাগ সূত্র জানায়, রোববার জেলায় নতুন করে ১৯৫ জনের করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়েছে। ৪৮১টি নমুনা পরীক্ষা করে এ শনাক্ত হয়। আক্রান্তের হার ৪০ দশমিক ৫৪ শতাংশ। জেলায় করোনাভাইরাসে আক্রান্তের মোট সংখ্যা আট হাজার ৪০৪ জন।

যশোরঃ
যশোরে করোনায় আক্রান্ত হয়ে ও উপসর্গ নিয়ে রেকর্ড ১৭ জনের মৃত্যু হয়েছে। গত ২৪ ঘণ্টায় মৃতদের মধ্যে আক্রান্ত হয়ে ৭ জন এবং উপসর্গ নিয়ে ১০ জনের মৃত্যু হয়েছে।

গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে করোনা শনাক্ত হয়েছে ১৯৫ জনের। ৫৭২ জনের নমুনা পরীক্ষা করে শনাক্তের এ সংখ্যা পাওয়া গেছে।
এছাড়া যশোর ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতালেও বেড়েছে করোনা আক্রান্ত ও উপসর্গের রোগীর চাপ। ১৪০টি শয্যার বিপরীতে রোগী ভর্তি রয়েছেন ২১৬ জন।

রোববার যশোর সিভিল সার্জন অফিসের তথ্য কর্মকর্তা ডা. মো. রেহেনেওয়াজ জানিয়েছেন, গত ২৪ ঘণ্টায় জেলার ৫৭২ জনের নমুনা পরীক্ষায় ১৯৫ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। এর মধ্যে যবিপ্রবির জিনোম সেন্টারে ২৪২ জনের নমুনা পরীক্ষা করে এই ৭৫ জন করোনা পজিটিভ রোগী শনাক্ত হয়েছেন। জিন এক্সপার্টের মাধ্যমে ৭ জনের নমুনা পরীক্ষা করে দুজনের এবং র্যাপিড অ্যান্টিজেন টেস্টে ৩২৩ জনের নমুনা পরীক্ষা করে ১১৮ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। এদিন খুলনা মেডিকেল কলেজে কোনো নমুনা প্রেরণ করা হয়নি।
গত ২৪ ঘণ্টায় আক্রান্তের হার ৩৪ ভাগ। এ সময়ে করোনায় আক্রান্ত হয়ে ৭ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে জেলায় মোট মৃতের সংখ্যা ১৬৯। জেলায় মোট শনাক্ত হয়েছেন ১৩ হাজার ২৩২ জন, সুস্থ হয়েছেন ৭ হাজার ৪৬৯ জন।

বগুড়াঃ
বগুড়ায় করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মৃতের সংখ্যা বেড়েই চলেছে। রোববার দুপুর পর্যন্ত গত ২৪ ঘণ্টায় মোহাম্মদ আলী হাসপাতালে আরও পাঁচজনের মৃত্যু হয়েছে। এ সময় ১৯৪ জনের শরীরে এ মরণব্যাধি শনাক্ত হয়।

এ নিয়ে জেলায় মোট ৪২১ জনের মৃত্যু হলো।

বগুড়ার ডেপুটি সিভিল সার্জন ডা. মোস্তাফিজুর রহমান তুহিন এ তথ্য দেন।

বগুড়া সিভিল সার্জন কার্যালয়ের সূত্র জানায়, শনিবার বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ (শজিমেক) হাসপাতাল পিসিআর ল্যাব এবং টিএমএসএস মেডিকেল কলেজ ও রফাতুল্লাহ কমিউনিটি হাসপাতালের পিসিআর ল্যাবে ৬০০ জনের নমুনা পরীক্ষা করলে ১৯৪ জনের শরীরে করোনা শনাক্ত হয়। আক্রান্তের হার ৩২ দশমিক ৩৩ শতাংশ। একই সময়ে সুস্থ হয়েছেন ৮১ জন।

নতুন আক্রান্ত ১৯৪ জনের মধ্যে বগুড়া সদরে ১২২ জন, শেরপুরে ১৬, কাহালুতে ১০, গাবতলীতে আট, শিবগঞ্জে সাত, শাজাহানপুরে ছয়, আদমদীঘিতে ছয়, নন্দীগ্রামে পাঁচ, দুপচাঁচিয়ায় পাঁচ, সারিয়াকান্দিতে চার, ধুনটে তিন ও সোনাতলায় দুজন।


এ জাতীয় আরো সংবাদ
এক ক্লিকে বিভাগের খবর