সংবাদ শিরোনাম :
সংবাদ শিরোনাম :
সাতক্ষীরা ১৮ মাস পর পানিমুক্ত হলো সাতক্ষীরার চারটি গ্রাম – গ্রামীন নিউজ২৪ ওয়ানডে বিশ্বকাপের মূলপর্বে জায়গা পেল  বাংলাদেশ নারী ক্রিকেট দল – গ্রামীন নিউজ২৪ একটি বাস দিয়ে নিজের সংসার চালায় কেউ কেউ – গ্রামীন নিউজ২৪ সাতক্ষীরার দেবহাটা ও কালিগঞ্জ উপজেলায় আওয়ামী লীগের ৯নেতা বহিস্কার – গ্রামীন নিউজ২৪ তাহিরপুরে বিআইডব্লিওটিএর নামে চাঁদাবাজী বন্ধের প্রতিবাদে ধর্মঘট ও মানববন্ধন – গ্রামীন নিউজ২৪ পঞ্চম ধাপের তফসিল ঘোষণা করেছে নির্বাচন কমিশন – গ্রামীন নিউজ২৪ মোংলায় সহিংস উগ্রবাদ প্রতিরোধে মতবিনিময় সভা – গ্রামীন নিউজ২৪ মুম্বাইয়ে সন্ত্রাসী হামলায় নিহতদের স্মরণে শাহবাগে মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চের মোমবাতি প্রজ্বলন – গ্রামীন নিউজ২৪ ঠাকুরগাঁওয়ে হরিপুরে বিলুপ্তপ্রায় নীলগাই উদ্ধারের পরে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যু – গ্রামীন নিউজ২৪ শ্যামনগরের শিশু ধর্ষন মামলার পলাতক আসামী র‌্যাবের হাতে আটক – গ্রামীন নিউজ২৪
বিজ্ঞপ্তি :
গ্রামীন নিউজ২৪টিভি পরিবারের জন্য দেশব্যাপী প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে। যোগ্যতা এইচ এসসি পাশ, অভিজ্ঞতাঃ ১ বৎসর, আগ্রহীরা যোগাযোগ করুন 01729188818, সিভি ইমেইল করুনঃ grameennews24tv@gmail.com

রংপুরের পীরগঞ্জে বানিজ্যিক ভাবে মাল্টা চাষের আগ্রহ বাড়ছে – গ্রামীন নিউজ২৪

মিনহাজুল ইসলাম মিলন রংপুর প্রতিনিধি : / ১৩২২ বার পঠিত
প্রকাশের সময় : বৃহস্পতিবার, ২ সেপ্টেম্বর, ২০২১, ৪:১৭ অপরাহ্ন

মাল্টা সাইট্রাস পরিবারভুক্ত একটি বিদেশী ফল। কমলা আর বাতাবি লেবুর সংকরায়ণে এ ফলের সৃষ্টি। এর আদি উৎপত্তিস্থল ভিয়েতনাম, দক্ষিণ চীন এবং উত্তর-পশ্চিম ভারত। রোগির পথ্য হিসেবে মাল্টা হিতকর। যা খেতে সুস্বাদু। দারুণ গন্ধ এবং পুষ্টিতে ভরপুর। এ মাল্টা বানিজ্যিক ভাবে চাষের আগ্রহ বেড়েছে রংপুরের পীরগঞ্জ উপজেলায়। বর্তমানে ছোট-বড় মিলে এ উপজেলায় প্রায় ২শতাধিক মাল্টা চাষের বাগান রয়েছে।

কুমেদপুর ইউনিয়নের শিবপুর গ্রামে বানিজ্যিক ভাবে মাল্টা চাষ করছে মালোশিয়া প্রাবাসী মিজানুর রহমান। ২০১৬ সালে দেড় একর জমিতে ৪০০টি মাল্টার গাছ দিয়ে বাগান করেন তিনি। ৫ বছরেই তিনি আজ সফল মাল্টাচাষি। বছরে ওই বাগান থেকে প্রায় ৮ লাখ টাকার মাল্টা বিক্রি হচ্ছে। তিনি মালোশিয়ায় থাকা অবস্থায় চ্যানেল আইয়ের হৃদয়ে মাটি ও মানুষ অনুষ্ঠানের প্রতিবেদক শাইখ সিরাজের প্রতিবেদন দেখে মাল্টা চাষের ওপর আগ্রহী হন। প্রবাস থেকে দেশে ফিরে এসে মাল্টা চাষ শুরু করেন। বর্তমানে তার বাগানে ৪০০টি মাল্টা গাছসহ নানান ফলের গাছ রয়েছে। তবে এ মাল্টা খেতে অনেক সুস্বাধু ও মিষ্টি। বর্তমানে এই মাল্টা নিজ এলাকা ছাড়িয়ে দিনাজপুর, রংপুর, ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে বাজারজাতকরণ করা হচ্ছে। বাগানে মাল্টার পাশাপাশি আরও আছে সৌদি আরবের খেজুর, কমলা ও লিচু। তবে মাল্টা চাষের উপর তিনি বিশেষ নজর দিয়েছেন। চারা রোপণের দুই বছরের মধ্যে ফলন শুরু হয়। কিন্তু ৩ বছর পর একটি গাছে পূর্ণাঙ্গভাবে ফল ধরা শুরু করে। তিন বছর পরে গাছপ্রতি মৌসুমে ৪০০ থেকে ৪৫০টি মাল্টা ধরে। তিনি এখন নিজেই চারা উৎপাদন করেন। প্রায় এক যুগ প্রবাসী জীবন কাটিয়ে ফিরে আসা মিজানুর গরুর খামার, মাছচাষ ও বিভিন্ন ফলের চাষ নিয়ে নিজেকে ব্যস্ত রেখেছেন। মিজানুরের অনুপস্থিতিতে বাগানের নিয়মিত পরির্চচা করেন তার ছোট ভাই মাসুদ রানা।

মাল্টাচাষী ভেন্ডাবাড়ির ইউনিয়নের জোদবাজ গ্রামের সাইফুল ইসলাম, মিল্কি আশ্বিনের পাড়ার মিলন মিয়া বড়দরগাহ ইউনিয়নের ছোট মিজার্পুরের রয়েল মিয়া, হাজিপুরের আব্দুল্লাহ জানান, মাল্টাচাষ বাণিজ্যিকভাবে লাভবান হওয়ায় মাল্টাচাষে মনোযোগ হয়েছি।

উপজেলা কৃষি কর্মকতার্ কৃষিবীদ সাদেকুজ্জামান সরকার জানান, প্রায় ৩০একর জমিতে ছোট বড় মিলে দুই শতাধিক বাগানে মাল্ট চাষ হচ্ছে। এনএটিপি-২ প্রকল্পের মাধ্যমে প্রর্দশনী প্লটে চারা ও সার বিনামুল্যে দিয়ে মাল্টা চাষে আগ্রহ তৈরী করা হয়েছে। এছাড়াও রাজস্ব খাতেও মাল্টাচাষীদের বিভিন্ন সহায়তা চলমান রয়েছে। সর্বনিম্ন ৫ শতাংশ উর্দ্ধে দেড় একর জমির বাগান রয়েছে এই উপজেলায়। কৃষকদের মাঠ ফসল ধান, গম, ভুট্টা চাষের পাশাপাশি উচ্চ মুল্যের ফসল চাষে দিকনিদের্শনা দিচ্ছে কৃষি বিভাগ। মাঠ ফসলের চাইতে কয়েকগুণ লাভবান হওয়ায় উচ্চ মুল্যের ফসলের প্রতি এ উপজেলার কৃষকদের আগ্রহ বেড়েছে

  • আমাদের ইউটিউব পেজ ভিজিট করতে লগইন করুনঃ Grameen news24 Tv

এ জাতীয় আরো সংবাদ
এক ক্লিকে বিভাগের খবর