সংবাদ শিরোনাম :
সংবাদ শিরোনাম :
একাদশ শ্রেণিতে ভর্তির প্রথম ধাপের ফল প্রকাশ – গ্রামীন নিউজ২৪ আটপাড়ায় আওয়ামী লীগের ৭৫ তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালিত – গ্রামীন নিউজ২৪ মুক্তাগাছায় আওয়ামীলীগ এর ৭৫তম প্লাটিনামজয়ন্তী উদযাপন – গ্রামীন নিউজ২৪ হাসপাতালে খালেদা জিয়া, আছেন সিসিইউতে – গ্রামীন নিউজ২৪ মহাত্মা গান্ধীর সমাধিতে শ্রদ্ধা নিবেদন করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা – গ্রামীন নিউজ২৪ দিল্লি পৌঁছেছেন প্রধানমন্ত্রী – গ্রামীন নিউজ২৪ পাঞ্জাবে সাত দিনের জন্য ১৪৪ ধারা জারি – গ্রামীন নিউজ২৪ দুর্নীতি মামলায় জামিন পেলেন দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী – গ্রামীন নিউজ২৪ ঘোড়াঘাটে নবীন বরণ মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত – গ্রামীন নিউজ২৪ বন্যার কারনে স্থগিত সিলেট বোর্ডের এইচএসসি পরীক্ষা – গ্রামীন নিউজ২৪
বিজ্ঞপ্তি :
গ্রামীন নিউজ২৪টিভি পরিবারের জন্য দেশব্যাপী প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে। যোগ্যতা এইচ এসসি পাশ, অভিজ্ঞতাঃ ১ বৎসর, আগ্রহীরা যোগাযোগ করুন 01729188818, সিভি ইমেইল করুনঃ grameennews24tv@gmail.com। স্বল্প খরচে সাপ্তাহিক, মাসিক, বাৎসরিক চুক্তিতে আপনার প্রতিষ্ঠানের বিজ্ঞাপন দিতে যোগাযোগ করুন ০১৭২৯১৮৮৮১৮

ঠাকুরগাঁওয়ে হরিপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আব্দুল করিম,এর জীবনের গল্প – গ্রামীন নিউজ২৪

মোঃ মজিবর রহমান শেখ, ঠাকুরগাঁও জেলা প্রতিনিধি / ৯৩৩৩ বার পঠিত
প্রকাশের সময় : বুধবার, ২ মার্চ, ২০২২, ১০:১৪ পূর্বাহ্ণ
  • Print
  • দুই বছর বয়সে পোলিও রোগে ডান পায়ে সমস্যা দেখা যায়, শুরু হয় চ্যালেঞ্জিং জীবন, শুনেছেন অনেক কটু কথা, তবুও থেমে থাকেননি। পরিবারের সদস্যদের সহযোগিতা আর দৃঢ় প্রত্যয়ের কারণে আজ তিনি ঠাকুরগাঁও জেলার হরিপুর উপজেলার দায়িত্ব পালন করছেন। তিনি হলেন ঠাকুরগাঁও জেলার হরিপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আব্দুল করিম সাত্তার।

     

     

     

     

     

     

     

     

     

     

    আব্দুল করিম সাত্তার রাজশাহীর গোদাগাড়ী উপজেলার বাসুদেবপুর ইউনিয়নের কাশিমপুর গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। তিনি কাশিমপুর-২ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় থেকে প্রাথমিক শেষ করে কাশিমপুর এ কে ফজলুল হক উচ্চ বিদ্যালয় থেকে এসএসসিতে প্রথম বিভাগে উত্তীর্ণ হন। পরে রাজশাহী নিউ গভমেন্ট কলেজ থেকে এইচএসসি শেষ করে রাজশাহী কলেজ থেকে ইংরেজি সাহিত্যে স্নাতক ও স্নাতকোত্তর সম্পন্ন করেন।

     

     

     

     

     

     

     

     

     

     

    এরপর ৩১তম বিসিএসে প্রশাসন ক্যাডারে উত্তীর্ণ হন। ২০১৩ সালে লালমনিরহাট জেলা প্রশাসক কার্যালয়ে প্রবেশনার হিসেবে যোগদান করেন ৷ পরে রংপুর জেলার ম্যাজিস্ট্রেট, নওগাঁ জেলার সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও লালমনিরহাটের পাটগ্রাম উপজেলার উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। বর্তমানে ঠাকুরগাঁও জেলার হরিপুর উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। প্রতিবন্ধকতা আর চ্যালেঞ্জ মোকাবিলা করে সমাজের বোঝা না হয়ে যে সম্পদ হওয়া যায় ,আব্দুল করিম সাত্তার সেই গল্পই করেছেন সাংবাদিক মোঃ মজিবর রহমান শেখ এর সঙ্গে।

     

     

     

     

     

     

     

     

     

     

     

    নির্বাহী কর্মকর্তা করিম , মাত্র ২ বছর বয়সে পোলিওতে আক্রান্ত হই। পরে আমার ডান পায়ে সমস্যা দেখা দেয়। পরিবার থেকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হয়। কিন্তু কোনো আশানুরূপ ফল পাওয়া যায়নি। চিকিৎসক বলেছিলেন, এভাবেই ফিজিওথেরাপি নিয়ে যতটুকু ভালো থাকা যায়। ছোটবেলায় পরিবারের সদস্যদের সহযোগিতায় যাতায়াত করতে হতো। ধীরে ধীরে পায়ে হাত রেখে চলার চেষ্টা করি। হাঁটতে গিয়ে অনেক বার পড়ে গিয়েছি। আমার খুব মনে পড়ছে, স্কুলে যাওয়ার সময় অনেক বার বই সহ মাটিতে পড়ে গিয়েছি। এতে আমার বই-খাতা ভিজে গেছে। পরে আমি মোটা মোলাট ব্যবহার করতাম যাতে পড়ে গেলেও আর বই-খাতা না ভিজে। তারপর দীর্ঘ চেষ্টার পর পায়ে হাত রেখে হাঁটার অভ্যাস করি।

     

     

     

     

     

     

     

     

     

    নির্বাহী কর্মকর্তা করিম , যেহেতু আমি হাঁটাচলা করতে পারতাম না সেই কারণে পরিবারের সদস্যদের সাহায্যে এক জায়গা থেকে আরেক জায়গায় যেতে হতো। বাবা-মা সব সময় আমাকে অন্য ভাই-বোনদের মতো দেখেছে। প্রতিবন্ধী বলে কখনও বলত না তোর দ্বারা কিছু হবে না। তাদের সহযোগিতায় আজ এতদূর আসতে পেরেছি। নির্বাহী কর্মকর্তা করিম , সমাজ এখনো প্রতিবন্ধী মানুষদের আলাদা চোখে দেখে। কিছু মানুষ মানসিকভাবে সমর্থন দিলেও অধিকাংশ মানুষ আলাদাভাবে দেখত। তারা চাইতো শারীরিকভাবে অক্ষম অন্য মানুষদের মতো করে জীবিকা নির্বাহ করতে। অন্যের সহযোগিতা নিয়ে বাঁচতে। তবে আমি আমার পরিবারের অনেক সমর্থন পেয়েছি। তাই পিছপা হইনি। নির্বাহী কর্মকর্তা করিম , শিক্ষকরা আমাকে পর্যাপ্ত সমর্থন দিয়েছেন। তারা অন্য শিক্ষার্থীদের চেয়ে আমার যত্ন নিতেন বেশি। তাদের সহযোগিতা ছাড়া আমার এই পর্যায়ে আসা শারীরিকভাবে প্রতিবন্ধী হওয়ায় অনেকেই কাজ থেকে নিজেদের গুটিয়ে নেন। তারা নিজেদের সমাজের বোঝা মনে করেন। আমাদের মনে রাখতে হবে আল্লাহ একজন মানুষকে সবদিক দিয়ে পরিপূর্ণ করে গড়ে তোলেন না। আবার এটাও মনে রাখতে হবে, আপনার শারীরিক অক্ষমতা আছে কিন্তু আপনার কোনো না কোনো একটি বড় যোগ্যতাও আছে। যেটার মাধ্যমে আপনি আপনার জীবনকে এগিয়ে নিতে পারবেন। আমি দেখেছি অনেক শারীরিক প্রতিবন্ধী ভাই-বোন সুন্দর করে গান করতে পারেন। কেউ ভালো ছবি আঁকতে পারেন। ইউএনও হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। এক্ষেত্রে কোনো চ্যালেঞ্জ মোকাবিলা করছেন কি? পেশাগত জীবনে শিক্ষকতা করার খুব ইচ্ছে ছিল। কিছুদিন শিক্ষকতাও করেছি। তবে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা হিসেবে এখন আরো বেশি খুশি। এটি এমন একটি জায়গা যেখানে সব শ্রেণি-পেশার মানুষের সঙ্গে মেলামেশার সুযোগ আছে। সমাজের অসহায়, দরিদ্র ও নিপীড়িত মানুষের পাশে দাঁড়ানো যায়। সবচেয়ে বড় বিষয় হলো আমি নিজেই একজন শারীরিক প্রতিবন্ধী। তাই শারীরিকভাবে অক্ষম মানুষের পাশে দাঁড়াতে পারছি।


    এ জাতীয় আরো সংবাদ
    • আমাদের ইউটিউব পেজ ভিজিট করতে লগইন করুনঃ Grameen news24 Tv
    এক ক্লিকে বিভাগের খবর