সংবাদ শিরোনাম :
সংবাদ শিরোনাম :
উপকূলে আঘাত হেনেছে ঘূর্ণিঝড় রেমাল – গ্রামীন নিউজ২৪ আচরণবিধি লঙ্ঘনের দায়ে ঈশ্বরদীর চেয়ারম্যান প্রার্থী রানা সরদারের প্রার্থীতা বাতিল – গ্রামীন নিউজ২৪ শিক্ষকের অনিয়ম ও দুর্নীতির বিরুদ্ধে এলাকাবাসীর মানববন্ধন – গ্রামীন নিউজ২৪ ডুবে যাওয়ার তিনদিন পর যুবকের ভাসমান মরদেহ উদ্ধার – গ্রামীন নিউজ২৪ ধেয়ে আসছে রেমাল, সন্ধ্যায় অতিক্রম করতে পারে যেসব এলাকা – গ্রামীন নিউজ২৪ গাইবান্ধা-পলাশবাড়ী সড়কে বাস খাদে নিহত ১ – গ্রামীন নিউজ২৪ ঘূর্ণিঝড় রেমাল: চট্টগ্রাম বন্দরের সব কাজ বন্ধ, ওঠা-নামা হচ্ছে না ফ্লাইটও – গ্রামীন নিউজ২৪ মরদেহ এখনো উদ্ধার হয়নি, তবে কাজ অনেকদূর এগিয়েছে – গ্রামীন নিউজ২৪ ১২ ফুটের অধিক জলোচ্ছ্বাসের শঙ্কা, ১০ নম্বর মহাবিপদ সংকেত – গ্রামীন নিউজ২৪ ৬০৩ বোতল ভারতীয় ফেন্সিডিলসহ মাদককারবারি আটক – গ্রামীন নিউজ২৪
বিজ্ঞপ্তি :
গ্রামীন নিউজ২৪টিভি পরিবারের জন্য দেশব্যাপী প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে। যোগ্যতা এইচ এসসি পাশ, অভিজ্ঞতাঃ ১ বৎসর, আগ্রহীরা যোগাযোগ করুন 01729188818, সিভি ইমেইল করুনঃ grameennews24tv@gmail.com। স্বল্প খরচে সাপ্তাহিক, মাসিক, বাৎসরিক চুক্তিতে আপনার প্রতিষ্ঠানের বিজ্ঞাপন দিতে যোগাযোগ করুন ০১৭২৯১৮৮৮১৮

আটঘরিয়ায় ওয়াসিম আলীর ৩ লাখ টাকার তরমুজ খেতেই পচে যাচ্ছে – গ্রামীন নিউজ২৪

ইব্রাহীম খলীল, পাবনা জেলা প্রতিনিধি : / ৬৯২ বার পঠিত
প্রকাশের সময় : বৃহস্পতিবার, ২১ এপ্রিল, ২০২২, ৪:৫৪ অপরাহ্ণ
  • Print
  • তীব্র তাপদাহ ও রমজান মাসে চাহিদা বাড়ায় বেশ ভালো দামে বিক্রি হচ্ছে রসালো ফল তরমুজ। আটঘরিয়া উপজেলার দেবোত্তর ইউনিয়নের শ্রীকান্তপুর গ্রামের শাহাজান আলীর ছেলে তরমুজ চাষি ওয়াসিম আলী। উপজেলার একমাত্র তরমুজ চাষি। তবে তার ৩লাখ টাকার তরমুজ খেতেই পচে যাচ্ছে।

     

     

     

     

     

     

     

     

     

     

     

     

     

     

    দেড় থেকে দুই বিঘা জমিতে তরমুজ চাষ করেছেন তিনি। ভাইরাস সংক্রমণের ফলে খেতেই তরমুজ গাছের পাতা হলুদ ও সবুজের মিশ্র রঙ ধারণ করে গাছ ও ফল মরে যাচ্ছে। তরমুজ পরিপক্ক হওয়ার আগেই এমন বিপর্যয়ে দিশেহারা হয়ে পড়েছেন তরমুজ চাষি ওয়াসিম।

    সরেজমিনে গিয়ে দেখা গেছে, মোড়ক রোগে জমিতেই পঁচে ঝলছে গেছে চাষি ওয়াসিম আলীর দেড় থেকে দুই বিঘা জমির তরমুজের গাছ। মরা গাছের সাথে অপরিপক্ক তরমুজও পঁচে আছে সারি সারি। প্রায় পৌঁনে দুই বিঘা জমিতে তরমুজ চাষ করে ছিলেন তিনি। একটা টাকারও তরমুজ বিক্রি করতে পারেন নি চাষি ওয়াসিম।

     

     

     

     

     

     

     

     

     

     

     

     

     

     

    ক্ষতিগ্রস্থ্য তরমুজ চাষি ওয়াসিম জানান, আমি দেড় থেকে দুই বিঘা জমিতে এ বছর মোড়-১৯ জাতের তরমুজ লাগিয়েছি। এতে খরচ হয়েছিল প্রায় ১লাখ ৫০ হাজার টাকা। তিনি লাখ তিনেক টাকা লাভের আশা করেছিলেন। প্রথম দিকে জমিতে তরমুজের গাছও হয়ে ছিল ভাল। কিন্তু ফল আসতে ছিল না। গাছের বয়স বাড়ার সাথে সাথে তরমুজের ফল আসতে শুরু করল। তরমুজও পরিপক্ক হতে লাগলো।

    তিনি আরও বলেন, হঠাৎ করেই ভাইরাসের আক্রমণ শুরু হয়। কয়েক দিনের মাথায় ক্ষেতে ভাইরাস ছড়িয়ে পড়ে। তাতে খেতের সব তরমুজে পঁচন ধরে জমিতে ঝলছে পড়ছে। এখন যে অবস্থা, তাতে এক টাকার ফসলও ঘরে যায়নি। ফলও আসলো কিন্তু টেকানো গেলো না।

     

     

     

     

     

     

     

     

     

     

     

     

     

    উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা সজীব আল মারুফ জানান, উপজেলায় তরমুজ চাষ একদমই নতুন। বছরে হাতে গোনা কৃষকও তরমুজ চাষ করে না। আবার কোনো মৌসুমে দুই একজন চাষি শখের বসে পরীক্ষামূলক তরমজু চাষ করে। এ উপজেলা বছরে অল্প সংখ্যক তরমুজ চাষ হওয়ায় তেমনটা লাভবান হতে পারে না চাষিরা। এ জন্য তরমুজ চাষে চাষিদের তেমনটা আগ্রহ নেই। ফলে দেশের বিভিন্ন অঞ্চল থেকে প্রচুর পরিমাণ তরমুজ এসে চাহিদা পূরুণ করে আক্রান্ত তরমুজের খেতে সঠিক নিয়মে কীটনাশক প্রয়োগ করতে হবে। সঠিক পদ্ধতি জানা না থাকলে দ্রুত ভাইরাস আক্রমণ করে।


    এ জাতীয় আরো সংবাদ
    • আমাদের ইউটিউব পেজ ভিজিট করতে লগইন করুনঃ Grameen news24 Tv
    এক ক্লিকে বিভাগের খবর