সংবাদ শিরোনাম :
সংবাদ শিরোনাম :
শাকিব-বুবলীর সন্তানের খবরে ভক্তের মিষ্টি বিতরণ – গ্রামীন নিউজ২৪ রাজধানীর মীরবাগ থেকে গৃহবধুর লাশ উদ্ধার – গ্রামীন নিউজ২৪ মাঠে গড়ালো নারী এশিয়া কাপ, টস হেরে বোলিংয়ে বাংলাদেশ- গ্রামীন নিউজ২৪ নড়াইলে এসএসসি পরীক্ষার্থীর উপর সন্ত্রাসী হামলা – গ্রামীন নিউজ২৪ সাতক্ষীরা জেলা পরিষদে মন্ত্রানালয়ের চিঠি জালিয়াতি করে বাবার নামে এতিমখানা – গ্রামীন নিউজ২৪ কয়রায় ছোট ভাইয়ের দায়ের কোপে বিছিন্ন বড় ভাইয়ের হাত – গ্রামীন নিউজ২৪ আইজিপি হিসেবে চৌধুরী আবদুল্লাহ আল-মামুন আনুষ্ঠানিকভাবে দায়িত্ব গ্রহণ – গ্রামীন নিউজ২৪ ঠাকুরগাঁওয়ে মাদক মামলায় ৩ জনের যাবজ্জীবন – গ্রামীন নিউজ২৪ ৯ ঘন্টা পর রিয়াদগামী ফ্লাইটের যাত্রা – গ্রামীন নিউজ২৪ বিএনপির এখন প্রধান কাজ দেশের বিরুদ্ধে বিদেশে অপপ্রচার চালানো প্রধানমন্ত্রী – গ্রামীন নিউজ২৪
বিজ্ঞপ্তি :
গ্রামীন নিউজ২৪টিভি পরিবারের জন্য দেশব্যাপী প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে। যোগ্যতা এইচ এসসি পাশ, অভিজ্ঞতাঃ ১ বৎসর, আগ্রহীরা যোগাযোগ করুন 01729188818, সিভি ইমেইল করুনঃ grameennews24tv@gmail.com

পাকিস্তানকে রাষ্ট্রীয়ভাবে ক্ষমা চাইতে হবে- মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চ – গ্রামীণ নিউজ২৪

বিশেষ প্রতিনিধি / ৫৫৭ বার পঠিত
প্রকাশের সময় : বুধবার, ১৭ আগস্ট, ২০২২, ১২:২১ পূর্বাহ্ণ
  • Print
  • ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে সপরিবারে হত্যাকাণ্ডের সাথে জড়িত থাকার অপরাধে পাকিস্তানকে রাষ্ট্রীয়ভাবে বাংলাদেশের নিকট নিঃশর্ত ক্ষমা চাওয়ার দাবি জানিয়েছে বাংলাদেশ মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চ।

    সোমবার (১৫ আগস্ট) সোমবার বিকাল ৩টায় শাহবাগ জাতীয় জাদুঘরের সামনে আয়োজিত আলোচনা সভা ও সন্ধ্যা ৭টায় মোমবাতি প্রজ্বলন কর্মসূচীতে এই দাবি জানানো হয়েছে। এর আগে দুপুর ১২টায় একই দাবিতে ঢাকাস্থ পাকিস্তান দূতাবাসে স্মারকলিপি প্রদান করেছে বাংলাদেশ মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চ। সংগঠনের সভাপতি আমিনুল ইসলাম বুলবুল ও সাধারণ সম্পাদক আল মামুন স্বাক্ষরিত পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী বরাবর স্মারকলিপি প্রদানের সময় উপস্থিত ছিলেন সংগঠনের সহ-সভাপতি শাহীন মাতুব্বর, তসলিম খান ও সদস্য মোজাম্মেল মীর। ঢাকাস্থ পাকিস্তান দূতাবাসের পক্ষে স্মারকলিপি গ্রহণ করেন গুলশান ডিপ্লোমেটিক জোন পুলিশের এসি এলিন চৌধুরী। এরপর বিকেল ৪টায় শাহবাগ জাতীয় জাদুঘরের সামনে জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে আয়োজিত আলোচনা সভায় বক্তারা একই দাবি জানিয়েছেন। সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক আল মামুন এর সঞ্চালনায় উক্ত আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব করেন সংগঠনের সভাপতি আমিনুল ইসলাম বুলবুল। আরোও বক্তব্য রাখেন সংগঠনের উপদেষ্টা বীর মুক্তিযোদ্ধা রুহুল আমিন মজুমদার, ভাস্কর্য শিল্পী রাশা, সংগঠনের সহ-সভাপতি শাহীন মাতুব্বর, কানিজ ফাতেমা, ইঞ্জি: কামরুজ্জামান রাজু, নুর আলম সরদার, জাকারিয়া ইসলাম, রাসেল হাওলাদার, সাংগঠনিক সম্পাদক হাসিবুল তুষার ও আইন বিষয়ক সম্পাদক এ্যাড. এইউজেড প্রিন্স।

    আলোচনা সভা ও মোমবাতি প্রজ্বলন কর্মসূচীতে সংগঠনের সভাপতি আমিনুল ইসলাম বুলবুল বলেন, “১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে সপরিবারে হত্যাকাণ্ডের সাথে জড়িত থাকার অপরাধে একাত্তরের পরাজিত অপশক্তি পাকিস্তানকে রাষ্ট্রীয়ভাবে বাংলাদেশের নিকট নিঃশর্ত ক্ষমা চাওয়ার দাবিতে জানাচ্ছে বাংলাদেশ মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চ। আজ ১৫ আগস্ট, জাতীয় শোক দিবস। বাঙালি জাতির জীবনে সবচেয়ে বড় বেদনাদায়ক দিন। ১৯৭৫ সালের আজকের এইদিনে পাকিস্তান একাত্তরে পরাজিত হওয়ার প্রতিশোধ নেয়ার জন্য সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙ্গালি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে সপরিবারে নির্মমভাবে হত্যা করেছিল যা পৃথিবীর ইতিহাসে জঘন্যতম হত্যাকাণ্ড।”

    সংগঠনের উপদেষ্টা বীর মুক্তিযোদ্ধা রুহুল আমিন মজুমদার বলেন, “বঙ্গবন্ধুর খুনী ও মদদদাতাদের জবানবন্দিতে বঙ্গবন্ধু হত্যাকাণ্ডে পাকিস্তানের সংশ্লিষ্টতা সুস্পষ্টভাবে প্রমাণিত হয়েছে। কিন্তু আজও পর্যন্ত পাকিস্তান বাংলাদেশের নিকট রাষ্ট্রীয় ভাবে ক্ষমা চাইনি। পাকিস্তান হানাদার বাহিনী ২৫শে মার্চ অপারেশন সার্চলাইটের নামে বাঙ্গালিদের ওপর ঝাঁপিয়ে পড়ে ৩০ লক্ষ নিরপরাধ মানুষকে হত্যা ও ২ লক্ষ মা-বোনের সম্ভ্রমহানি করেছিল। বারবার দাবি করা সত্ত্বেও এসব একাত্তর ও পঁচাত্তরের অপকর্মের জন্য পাকিস্তান আজও পর্যন্ত বাংলাদেশের নিকট রাষ্ট্রীয়ভাবে ক্ষমা চায়নি।”

    ভাস্কর্য শিল্পী রাশা বলেন, “পাকিস্তান ক্ষমা না চাওয়ার মাধ্যমে প্রমাণিত হয়েছে যে, পাকিস্তান রাষ্ট্রীয় ভাবে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের হত্যাকাণ্ড ও একাত্তরের গণহত্যাকে সমর্থন করে। জাতিসংঘের নিকট দাবি, আন্তর্জাতিক অপরাধ আদালতে পাকিস্তান ও তার সেনাবাহিনীর বিচার করতে হবে।”

    সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী ও সংগঠনের আইন বিষয়ক সম্পাদক এ্যাড. এইউজেড প্রিন্স বলেন, “১৫ আগস্ট জাতীয় শোক দিবস। বাঙ্গালী জাতির জীবনে সবচেয়ে বেদনা ও কষ্টের দিন। এই দিনে আমরা হারিয়েছি হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙ্গালী জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানসহ তাঁর পরিবারের অধিকাংশ সদস্যকে। মহান মুক্তিযুদ্ধের পরাজিত অপশক্তিরা ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্টের সেই কালো রাত্রিতে ধানমণ্ডির বত্রিশ নাম্বার বাড়িতে বঙ্গবন্ধু কে সপরিবারে নির্মমভাবে হত্যা করেছিল। বঙ্গবন্ধু হত্যাকাণ্ডে জড়িত স্বঘোষিত খুনীদের বিচার হলেও আজও পর্যন্ত এই নির্মম হত্যাকাণ্ডের পিছনের মূল কুশীলবদের বিচার হয়নি। অবিলম্বে একটি উচ্চ ক্ষমতাসম্পন্ন তদন্ত কমিশন গঠন করে বঙ্গবন্ধু হত্যাকাণ্ডের মদদদাতা মূল কুশীলবদের খুঁজে বের করে তাদেরকেও আইনের আওতায় আনার জন্য সরকারের কাছে জোর দাবি জানাচ্ছি।”

    সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক আল মামুন বলেন, খুনি জিয়ার মরণোত্তর বিচার করতে হবে। কারণ পাকিস্তানের নির্দেশে জিয়াউর রহমান বঙ্গবন্ধুকে সুপরিকল্পিতভাবে হত্যা করেছিল। পাকিস্তান রাষ্ট্রীয়ভাবে ক্ষমা না চাইলে বঙ্গবন্ধু হত্যাকাণ্ড ও একাত্তরের গণহত্যার সাথে জড়িত পাকিস্তান ও তার সেনাবাহিনীর বিরুদ্ধে আন্তর্জাতিক যুদ্ধাপরাধ আদালতে মামলা করার জন্য রাজপথে আন্দোলন-সংগ্রামের মাধ্যমে বাংলাদেশ সরকারের ওপর কঠোর চাপ সৃষ্টি করবে বাংলাদেশ মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চ। বঙ্গবন্ধু কন্যা দেশরত্ন শেখ হাসিনা ও বাংলাদেশের বিরুদ্ধে পাকিস্তানি অপশক্তির নানাবিধ ষড়যন্ত্র এখনো চলমান। পাকিস্তান ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলায় জড়িত জঙ্গিদের সরাসরি মদদদাতা ও গ্রেনেড সরবরাহকারী যা ইতিমধ্যে প্রমাণিত হয়েছে। ঢাকাস্থ পাকিস্তান দূতাবাস কূটনৈতিক শিষ্টাচার লঙ্ঘন করে জামাত-শিবির-বিএনপির জঙ্গিদের অর্থায়ন চলমান রেখেছে। একাত্তরের গণহত্যা, ১৫ আগস্টে বঙ্গবন্ধু হত্যাকাণ্ড এবং ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা চালিয়ে বঙ্গবন্ধু কন্যা দেশরত্ন শেখ হাসিনাকে হত্যাচেষ্টার সাথে পাকিস্তানের আইএসআই প্রত্যক্ষভাবে জড়িত থাকার অপরাধে পাকিস্তানকে বাংলাদেশের জনগণের নিকট নিঃশর্ত ক্ষমা চাইতে হবে। বাংলাদেশ সরকারের নিকট দাবি, ঢাকাস্থ পাকিস্তান দূতাবাসের কার্যক্রম সংকুচিত করতে হবে। স্বাধীনতা বিরোধী ও সাম্প্রদায়িক অপশক্তির মদদদাতা পাকিস্তানকে কঠোর জবাবদিহিতার আওতায় আনতে হবে। অন্যথায় বঙ্গবন্ধু হত্যাকাণ্ড, একুশে আগস্ট গ্রেনেড হামলা ও একাত্তরের গণহত্যার অপরাধে ঢাকাস্থ পাকিস্তান দূতাবাস বন্ধসহ সকল ধরনের কূটনৈতিক সম্পর্ক বিচ্ছিন্ন করার দাবিতে পাকিস্তান দূতাবাস ঘেরাওসহ দেশব্যাপী কঠোর কর্মসূচী ঘোষণা করবে বাংলাদেশ মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চ।

    সংগঠনের সহ-সভাপতি কানিজ ফাতেমা বলেন, জাতির পিতার আদর্শ ধারণ করে আমাদেরকে এগিয়ে যেতে হবে। বঙ্গবন্ধুর আদর্শ ধারণকারীরা কখনোই দুর্নীতি করতে পারে না। বঙ্গবন্ধু হত্যাকাণ্ডে জিয়াউর রহমান জড়িত ছিল। পঁচাত্তরে জিয়ার বক্তব্যে তা প্রমাণিত হয়েছে। জিয়ার দল বঙ্গবন্ধুর বিরোধিতা করবে এটাই স্বাভাবিক। বঙ্গবন্ধুর বিরোধিতাকারীরা দেশ ও জাতির শত্রু। এদেরকে রুখে দিবে মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চ।

    • আমাদের ইউটিউব পেজ ভিজিট করতে লগইন করুনঃ Grameen news24 Tv

    এ জাতীয় আরো সংবাদ
    এক ক্লিকে বিভাগের খবর