সংবাদ শিরোনাম :
সংবাদ শিরোনাম :
তুরস্ক-সিরিয়ায় ভূমিকম্পে নিহতের ঘটনায় বাংলাদেশে রাষ্ট্রীয় শোক আজ – গ্রামীন নিউজ২৪ রাশিয়ার সেনাবাহিনীর সাবেক ক্যাপ্টেন কুখ্যাত’ সেনা কমান্ডার নিহত – গ্রামীন নিউজ২৪ তুরস্ক ও সিরিয়ায় ভুমিকম্পে নিহতের সংখ্যা প্রায় ১৬ হাজারে পৌঁছেছে – গ্রামীন নিউজ২৪ গাইবান্ধায় নাগরিক উন্নয়ন সংস্থার শীতবস্ত্র বিতরণ – গ্রামীন নিউজ২৪ মোংলা বন্দরে এসেছে কয়লার জাহাজ – গ্রামীন নিউজ২৪ সংসদে বিদ্যুৎ-গ্যাসের দাম বাড়ার কারন জানালেন প্রধানমন্ত্রী – গ্রামীন নিউজ২৪ ডুমুরিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের উপ-প্রচার সম্পাদক জাহাঙ্গীরের বহিষ্কার আদেশ প্রত্যাহার- গ্রামীন নিউজ২৪ বালিয়াডাঙ্গীতে প্রতিমা ভাংচুরের ঘটনা স্থান থেকে ফিরে বিএনপির সংবাদ সম্মেলন – গ্রামীন নিউজ২৪ আটঘরিয়ায় নিরাপদ খাদ্য বিষয়ে জনসচেতনতা মূলক কর্মশালা অনুষ্ঠিত – গ্রামীন নিউজ২৪ ঠাকুরগাঁওয়ে শিশুদের মাঝে শিক্ষা ও স্বাস্থ্য উপকরণ বিতরণ – গ্রামীন নিউজ২৪
বিজ্ঞপ্তি :
গ্রামীন নিউজ২৪টিভি পরিবারের জন্য দেশব্যাপী প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে। যোগ্যতা এইচ এসসি পাশ, অভিজ্ঞতাঃ ১ বৎসর, আগ্রহীরা যোগাযোগ করুন 01729188818, সিভি ইমেইল করুনঃ grameennews24tv@gmail.com

পদ্মায় বাড়ছে পানি, আতঙ্কে ৬ এলাকার মানুষ – গ্রামীন নিউজ২৪

আব্দুল করিম (দোয়েল) চাঁপাইনবাবগঞ্জ প্রতিনিধিঃ / ৮৬৫ বার পঠিত
প্রকাশের সময় : মঙ্গলবার, ২৭ জুলাই, ২০২১, ২:২৪ অপরাহ্ণ
  • Print
  • চাঁপাইনবাবগঞ্জে পদ্মা নদীতে পানি বাড়ছে। পানি বাড়ায় শিবগঞ্জের ৬ এলাকার লোকজন ভাঙন আতঙ্কে রয়েছেন। সবচেয়ে বেশি হুমকিতে আছে বাদশাপাড়া নামের গ্রামটি। পদ্মা পাড়ের ১০ থেকে ১৪ পরিবার ওই স্থান থেকে সরে গিয়ে নিরাপদ দূরত্বে ঘর বেঁধেছে।

    সোমবার (২৬ জুলাই) দুপুরে পানি উন্নয়ন বোর্ড সত্রে জানা গেছে, গত ২৪ ঘণ্টায় পদ্মা নদীতে দশমিক ৩ সেন্টিমিটার পানি বেড়েছে।

    শিবগঞ্জের দুর্লভপুর ইউনিয়নের নামো জগন্নাথপুর এলাকার বাসিন্দা আব্দুল আওয়াল বলেন, এখন পদ্মা নদীতে পানি বাড়ছে। নদীতে পানি বাড়ার চেয়ে কমার সময় ভাঙন বেশি হয়।

    রামনাথপুর এলাকার বজলুর রশিদ জানান, প্রতিবছর নদী ভাঙন দেখতে সরকারি লোকজন আসে। কিন্তু গত ৪ বছরে পদ্মা নদীতে হাজার হাজার বিঘা জমি মিলিয়ে গেছে। কেউ তো ক্ষতিপূরণ দেয়নি। এই মুহূর্তে বাদশাহ পাড়া, পন্ডিত পাড়া, দোভাগী, মনোহরপুর, ঠুঠা পাড়া, রামনাথপুর সবচেয়ে বেশি হুমকিতে আছে।

    সাইফুল নামে এক কৃষক বলেন, ‘আমার বাড়ি আগে ছিলো পণ্ডিত পাড়াতে, পদ্মা নদীতে ভাঙনের কারণে আমি দোগাভিতে পরের জমিতে ঘর করেছি। এখানেও ভাঙন ধরেছে। এতো বড় দুর্যোগেও কোনো সাহায্য সহযোগিতা পাইনি।’

    বাদশাহ পাড়ার সাইদুল নামে একজন বলেন, ‘আমার যেটুক ভিটামাটি ছিলো, প্রায় সবটুক পদ্মায় নেমে গেছে। আমরা ৩ ভাই একসঙ্গে ছিলাম। পদ্মায় ভাঙনের কারণে সবাই নিজ তাগিদে সরে গেছে। জানি না আমরা আর একসঙ্গে বসবাস করতে পারবো কি না। কারণ প্রায় সব জমি নদীতে মিশে গেছে।’

    তিনি জানান, ভাঙনের কারণে এখন পদ্মা পাড়ের ১০ থেকে ১৪ টি পরিবার নিরাপদ দুরত্বে চলে গেছে। পরের জায়গাতে গিয়ে বসবাস করছে।

    জেলা পানি উন্নয়ন বোর্ডের উপসহকারী প্রকৌশলৗ আবদুল্লাহ আল শরীফ জানান, পদ্মা নদীতে বিপৎসীমা ধরা হয়েছে ২২ দশমিক ৫০ সেন্টিমিটার। এখন পানি আছে ১৯ দশমিক ৫০ সেন্টিমিটার। একদিন আগে ওই নদীতে পানি ছিলো ১৯ দশমিক ৪৭ সেন্টিমিটার। গত ২৪ ঘণ্টায় পানি বেড়েছে দশমিক ৩ সেন্টিমিটার।

    তিনি আরও বলেন, ‘ঈদুল আজহার দুদিন আগে আমি ওই সব এলাকায় পরিদর্শন করেছি। ভাঙন কবলিত এলাকার কিছু কিছু পরিবার ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। ওই এলাকাটিতে ১২ কিলোমিটার জুড়ে স্পেশাল বাঁধ নির্মাণ করার প্রকল্প প্রক্রিয়াধীন আছে। আশা করছি, দ্রুত টেন্ডার পাস হবে।’

    • আমাদের ইউটিউব পেজ ভিজিট করতে লগইন করুনঃ Grameen news24 Tv

    এ জাতীয় আরো সংবাদ
    এক ক্লিকে বিভাগের খবর