সংবাদ শিরোনাম :
সংবাদ শিরোনাম :
লালমনিরহাটে রাসেল ভাইপার সাপের দেখা – গ্রামীন নিউজ২৪ একাদশ শ্রেণিতে ভর্তির প্রথম ধাপের ফল প্রকাশ – গ্রামীন নিউজ২৪ আটপাড়ায় আওয়ামী লীগের ৭৫ তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালিত – গ্রামীন নিউজ২৪ মুক্তাগাছায় আওয়ামীলীগ এর ৭৫তম প্লাটিনামজয়ন্তী উদযাপন – গ্রামীন নিউজ২৪ হাসপাতালে খালেদা জিয়া, আছেন সিসিইউতে – গ্রামীন নিউজ২৪ মহাত্মা গান্ধীর সমাধিতে শ্রদ্ধা নিবেদন করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা – গ্রামীন নিউজ২৪ দিল্লি পৌঁছেছেন প্রধানমন্ত্রী – গ্রামীন নিউজ২৪ পাঞ্জাবে সাত দিনের জন্য ১৪৪ ধারা জারি – গ্রামীন নিউজ২৪ দুর্নীতি মামলায় জামিন পেলেন দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী – গ্রামীন নিউজ২৪ ঘোড়াঘাটে নবীন বরণ মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত – গ্রামীন নিউজ২৪
বিজ্ঞপ্তি :
গ্রামীন নিউজ২৪টিভি পরিবারের জন্য দেশব্যাপী প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে। যোগ্যতা এইচ এসসি পাশ, অভিজ্ঞতাঃ ১ বৎসর, আগ্রহীরা যোগাযোগ করুন 01729188818, সিভি ইমেইল করুনঃ grameennews24tv@gmail.com। স্বল্প খরচে সাপ্তাহিক, মাসিক, বাৎসরিক চুক্তিতে আপনার প্রতিষ্ঠানের বিজ্ঞাপন দিতে যোগাযোগ করুন ০১৭২৯১৮৮৮১৮

বালিয়াডাঙ্গী স্বাস্থ্যকমপ্লেক্সের বিরুদ্ধে মেয়াদোত্তীর্ণ ইনজেকশন প্রয়োগের অভিযোগ – গ্রামীন নিউজ২৪

মোঃ মজিবর রহমান শেখ, ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধিঃ / ৩৭৫ বার পঠিত
প্রকাশের সময় : মঙ্গলবার, ২৮ মার্চ, ২০২৩, ৮:৩৬ অপরাহ্ণ
  • Print
  • ঠাকুরগাঁও জেলার বালিয়াডাঙ্গী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে এর বিরুদ্ধে জ্বিলানী (১১) নামের টাইফয়েডে আক্রান্ত শিশুকে মেয়াদোত্তীর্ণ হওয়া ইনজেকশন প্রয়োগের অভিযোগ উঠেছে।

     

    শিশুটির বাবা আকতার হোসেন গত ১৭ মার্চ শুক্রবার রাতে ফেসবুকে স্ট্যাটাস দিয়ে এই অভিযোগ করেন। তবে মেয়াদোত্তীর্ণ ইনজেকশন ভুল করে রোগীর কাছে নেওয়া হয়েছিল, কিন্তু শরীরে প্রয়োগ করা হয়নি, বলে দাবি করেছেন, বালিয়াডাঙ্গী উপজেলা হাসপাতালের আবাসিক চিকিৎসা কর্মকর্তা মিঠুন দেবনাথ। এ নিয়ে তিনি বলেন, ‘মেয়াদ উত্তীর্ণ জানার পর নার্স ঐ ইনজেকশন প্রয়োগ করেননি। একটা ভুল বোঝাবুঝি তৈরি হয়েছে।

     

    গত সোমবার (২০ মার্চ) বালিয়াডাঙ্গী উপজেলার ডাঙ্গীবাজার এলাকার বাসিন্দা আকতার হোসেন টাইফয়েডের কারণে ছেলে জ্বিলানীকে নিয়ে বালিয়াডাঙ্গী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে আসেন। এ সময় কথা হয় তাঁর সঙ্গে, তিনি বলেন, চিকিৎসকের পরামর্শ অনুযায়ী ছেলেকে দিনে দুইবার ইনজেকশন দেওয়ার কথা। এ ছাড়া অন্যান্য সেবা দেওয়া হলেও ছেলের স্বাস্থ্যের কোনো উন্নতি হচ্ছিল না। এর মধ্যে গত ২৩ মার্চ বৃহস্পতিবার বিকেলে একজন নার্স ছেলেকে ইনজেকশন পুশ করতে আসেন। এ সময় আমার স্ত্রী লক্ষ্য করেন, যে ভায়াল থেকে ইনজেকশন দেওয়া হবে তার মেয়াদ ৫ মাস আগে উত্তীর্ণ হয়ে গেছে। সঙ্গে সঙ্গে তিনি বিষয়টি জানালে ঐ ভায়াল থেকে আমার ছেলেকে আর ইনজেকশন পুশ করেননি ঐ নার্স। এরপর থেকে আর হাসপাতালের কোনো ইনজেকশন ছেলেকে পুশ করতে দিচ্ছি না। বাইরের দোকান থেকে ইনজেকশন কিনে এনে দিচ্ছি।’জিলানীর মা বলেন, ‘আমার ধারণা এ ঘটনার আগে ছেলের শরীরে প্রয়োগ করা ইনজেকশনগুলোও মেয়াদোত্তীর্ণ ছিল। এ কারণেই হয়তো আমার ছেলের অবস্থা আরও খারাপ হচ্ছিল।

     

    বিষয়টি তদন্ত করে ব্যবস্থা নিতে ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি আকর্ষণ করছি। বিষয়টি নিয়ে জানতে চাইলে বিকেলে দায়িত্বে থাকা নার্স কুলসুম বলেন, ‘আমরা চিকিৎসকের দেওয়া পরামর্শপত্র অনুযায়ী হাসপাতালে থাকা ইনজেকশন প্রয়োগ করে থাকি। তবে প্রয়োগের আগে সেগুলোর মেয়াদ রয়েছে কি না সেটা অবশ্যই যাচাই করি। তবে জিলানীর কী হয়েছে তা আমি জানি না। এ বিষয়ে বালিয়াডাঙ্গী উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা এ এস এম আলমাস বলেন, ‘পাঁচ মাস আগে মেয়াদোত্তীর্ণ ঔষুধ রোগীর কাছে যাওয়ার সুযোগ নেই। রোগীর স্বজনদের করা অভিযোগ তদন্ত করে দেখা হবে। এ ধরনের ঘটনা যেন পরবর্তী সময়ে না ঘটে এর জন্য যা যা প্রয়োজন করা হবে।


    এ জাতীয় আরো সংবাদ
    • আমাদের ইউটিউব পেজ ভিজিট করতে লগইন করুনঃ Grameen news24 Tv
    এক ক্লিকে বিভাগের খবর