সংবাদ শিরোনাম :
সংবাদ শিরোনাম :
সুন্দরগঞ্জে বাঁশ কাটতে গিয়ে বিদ্যুৎস্পৃষ্টে কৃষকের মৃত্যু – গ্রামীন নিউজ২৪ কুড়িগ্রামে ৪০ চোরাই বাইসাইকেলসহ আটক দুই – গ্রামীন নিউজ২৪ পঞ্চগড়ে নৌকা ডুবির ঘটনায় এখন পর্যন্ত ২৮ লাশ উদ্ধার- গ্রামীন নিউজ২৪ পঞ্চগড়ে নৌকা ডুবির ঘটনায় ২৩ লাশ উদ্ধার – গ্রামীন নিউজ২৪ সাতক্ষীরায় মুক্তিযোদ্ধাদের সাথে মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী’র মতবিনিময় – গ্রামীন নিউজ২৪ রাজপাড়া থানার ওসির অপসারণ দাবি করা হবে – গ্রামীন নিউজ২৪ সুন্দরগঞ্জে বিশ্ব নদী দিবস উদযাপন – গ্রামীন নিউজ২৪ ঠাকুরগাঁওয়ে বিশ্ব নদী দিবস উদযাপল র‍্যালী ও আলোচনা সভা – গ্রামীন নিউজ২৪ পঞ্চগড়ে নৌকা ডুবির ঘটনায় ১৬ মরদেহ উদ্ধার, এখনো নিখোঁজ ৩০ – গ্রামীন নিউজ২৪ মোংলায় বিদ্যুৎ স্পৃষ্টে একজনের মৃত্যু – গ্রামীন নিউজ২৪
বিজ্ঞপ্তি :
গ্রামীন নিউজ২৪টিভি পরিবারের জন্য দেশব্যাপী প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে। যোগ্যতা এইচ এসসি পাশ, অভিজ্ঞতাঃ ১ বৎসর, আগ্রহীরা যোগাযোগ করুন 01729188818, সিভি ইমেইল করুনঃ grameennews24tv@gmail.com

সরকারি ঘর দেওয়ার নামে মোরজিনার টাকা চেয়ারম্যান নাজিরের পকেটে – গ্রামীন নিউজ২৪

মোসলেম উদ্দিন, হিলি দিনাজপুর প্রতিনিধিঃ / ১৩৬২ বার পঠিত
প্রকাশের সময় : রবিবার, ৫ সেপ্টেম্বর, ২০২১, ১:৪৫ অপরাহ্ণ
  • Print
  • সরকারি ঘর দেওয়ার নামে অসহায় হতদরিদ্র মোরজিনা বেগমের ৪০ হাজার টাকা আত্মসাৎ করেছে দিনাজপুরের বিরামপুর উপজেলার ২ নং কাটলা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান নাজির হোসেন। এনজিও’র কিস্তি আর ধারদেনা করে এই টাকা জোগাড় করেন মোরজিনা বেগম। আজ পাওনা টাকা পরিশোধ করতে অনেক হিমশিম খাচ্ছেন তিনি।

    উপজেলার ২নং ইউনিয়নের উত্তর কাটলা গ্রামের আবু সাইদের অসহায় স্ত্রী মোরজিনা বেগম। ঘরে তার দুই মেয়ে আর এক ছেলে, স্বামী আবু সাইদ অনেক আগে তাকে ছেড়ে চলে গেছে। বহু কষ্টে ছেলে-মেয়েদের মানুষ করছেন তিনি। বড় মেয়ে বিয়ের উপযুক্ত হয়েছে, অর্থের অভাবে বিয়ে দিতে পারছেন না মেয়েকে।

    কয়েক শতক জায়গার উপর মোরজিনার একটি ছোট কুঁড়েঘর। স্বামী হারা সন্তানদের নিয়ে এই কুঁড়েঘরে তার কষ্টের বসবাস। অল্প একটু ঝড়-বৃষ্টি হলেই তার ঘর নড়বড় করে, প্রতিনিয়ত ছেলে-মেয়েদের নিয়ে তাকে আতঙ্কে থাকতে হয়।

    অনেক আশা সরকারের দেওয়া পাকা বাড়িতে ছেলে-মেয়েদের নিয়ে নিরাপদে বসবাস করবে মোরজিনা। তাই মানুষের কাছে ধারদেনা আর এনজিও’র নিকট কিস্তি নিয়ে ৪০ হাজার টাকা জোগাড় করে স্থানীয় চেয়ারম্যানের নিকট পাঠান। কিন্তু আশায় বাসা বাঁধলেও আজও তার আশা পুরন করেনি এই চেয়ারম্যান নাজির হোসেন।
    তবুও আশা আর স্বপ্ন দেখা ছাড়েননি এই অসহায় গরীব মোরজিনা বেগম। আজও তাকে দেখা যায় কাটলা ইউনিয়ন পরিষদে স্বপ্নে দেখা ঘরের খোঁজে।

    ২ নং কাটলা ইউনিয়ন পরিষদে দেখা হয় ভুক্তভোগী মোরজিনা বেগমকে। তিনি বলেন, হারা গরীব মানুষ, স্বামী নাই, অনেক কষ্ট করে ছোলপল মানুষ করুছু। ঘরদুয়ার নাই, চেয়ারম্যান মোক সরকারি ঘর করে দিবি। এই তঙ্কে চেয়ারম্যানের শালা শহিদুলের হাতে চায়েচিন্ত ৪০ হাজার টাকা চেয়ারম্যান নাজিরের কাছে দেউ। চেয়ারম্যান মোক কইছিলো তোমার কাগজপাতি সব হয়ে গেইছে, এক সপ্তাহের মধ্যে কাজ হবে। তিন বছর হলো, কিন্তু আজ পর্যন্ত চেয়ারম্যান মোর ঘরের ব্যবস্থা করে দিলি না। মোর মতো গরীব মানুষক, আর কত কষ্ট করবা নাগবে?

    টাকা নিয়ে মোরজিনাকে ঘর কেন দিচ্ছেন না, এমন প্রশ্ন করলে, বিরামপুর উপজেলার ২ নং কাটলা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান নাজির হোসেন বলেন, আমি তার নিকট কোন টাকা নেইনি। এগুলো মিথ্যা এবং বানুয়াট।

    এবিষয়ে বিরামপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার পরিমল কুমার সরকার জানান, আমি এবিষয়ে অবগত নই এবং কেউ আমাকে অভিযোগ করেনি। তবে আমার নিকট অভিযোগ করলে আমি এবিষয়ে ব্যবস্থা গ্রহন করবো।

    • আমাদের ইউটিউব পেজ ভিজিট করতে লগইন করুনঃ Grameen news24 Tv

    এ জাতীয় আরো সংবাদ
    এক ক্লিকে বিভাগের খবর