সংবাদ শিরোনাম :
সংবাদ শিরোনাম :
যারা দেশের ভাবমূর্তি নষ্ট করতে চায়, তাদেরকে রুখে দিতে হবে পার্বত্য প্রতিমন্ত্রী – গ্রামীন নিউজ২৪ বাংলাদেশ ও ঘানা ব্যবসা-বাণিজ্য বাড়াতে সম্মত – গ্রামীন নিউজ২৪ মির্জাপুরে ট্রাক চালক খুনের মুল পরিকল্পনাকারীসহ ৬ ডাকাত গ্রেপ্তার – গ্রামীন নিউজ২৪ আলোচিত রফিকুল ইসলাম মাদানীকে ওয়াজের অনুমতি না দেওয়ায় পুলিশ ফাঁড়িতে হামলা ও ভাঙচুর – গ্রামীন নিউজ২৪ দেশি পণ্যের প্রতি বিদেশিদের আকর্ষণ বাড়াতে হবে: বাণিজ্য প্রতিমন্ত্রী – গ্রামীন নিউজ২৪ প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ দ্বিতীয় ধাপের ফল প্রকাশ – গ্রামীন নিউজ২৪ মধুখালীতে ১১১টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শহীদ মিনার নাই – গ্রামীন নিউজ২৪ গাইবান্ধায় ইয়াবাসহ আটক ১ – গ্রামীন নিউজ২৪ সাংবাদিকের ওপর হামলার প্রতিবাদে কুষ্টিয়ায় মানববন্ধন – গ্রামীন নিউজ২৪ ২১ বিশিষ্ট ব্যক্তির হাতে একুশে পদক তুলে দিলেন প্রধানমন্ত্রী – গ্রামীন নিউজ২৪
বিজ্ঞপ্তি :
গ্রামীন নিউজ২৪টিভি পরিবারের জন্য দেশব্যাপী প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে। যোগ্যতা এইচ এসসি পাশ, অভিজ্ঞতাঃ ১ বৎসর, আগ্রহীরা যোগাযোগ করুন 01729188818, সিভি ইমেইল করুনঃ grameennews24tv@gmail.com। স্বল্প খরচে সাপ্তাহিক, মাসিক, বাৎসরিক চুক্তিতে আপনার প্রতিষ্ঠানের বিজ্ঞাপন দিতে যোগাযোগ করুন ০১৭২৯১৮৮৮১৮

মোংলায় ঠান্ডায় রোগে আক্রান্ত হচ্ছে শিশুরা – গ্রামীন নিউজ২৪

শেখ রাফসান বাগেরহাট প্রতিনিধিঃ / ৩৪৬ বার পঠিত
প্রকাশের সময় : সোমবার, ১৭ জানুয়ারি, ২০২২, ৪:৫৮ অপরাহ্ণ
  • Print
  • হঠাৎ করে শৈত্যপ্রবাহের কারণে মংলায় ঠাণ্ডাজনিত রোগে বয়স্কদের চাইতে বেশি আক্রান্ত হচ্ছে শিশুরা। মংলা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায় অন্যান্য সময়ের তুলনায় আউটডোরে সাধারণ রোগীর চাপ অনেক বেশি।

     

     

     

    উপজেলার মিঠাখালি ইউনিয়ন থেকে আসা জামিলা খাতুন জানান হঠাৎ করে শীতের তীব্রতা বেড়ে যাওয়ার কারণে তিনি আমাশা এবং শ্বাসকষ্টে ভুগছেন তাই ডাক্তারের কাছে চিকিৎসা নিতে এসেছেন। তবে বয়স্কদের চাইতে শিশু রোগীর সংখ্যা ছিল চোখে পড়ার মতো উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের শিশু কর্ণারে গিয়ে দেখা যায় রোগীর স্বজনদের উপচে পড়া ভিড়। মোংলা পৌর এলাকার বাসিন্দা মমতাজ বেগম বলেন হঠাৎ করে শীতের তীব্রতা বেড়ে যাওয়ায় আমার দুই বাচ্চা অসুস্থ হয়ে পড়েছে তারা আজ দুদিন যাবত আমাশা সর্দি কাশি নিয়ে ভুগছেন। উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের শিশু কর্ণার এর চিকিৎসক প্রকাশ কুমার দাস বলেন অন্যান্য সময়ের তুলনায় বর্তমানে শিশু রোগীর চাপ অনেক বেশি সাধারণ সময় প্রতিদিন ৩০ থেকে ৪০ জন রোগী আসলেও বর্তমান সময়ে তা ১০০ এর মত হয়ে গেছে যার বেশির ভাগ শিশু ঠাণ্ডাজনিত রোগ আমাশা, সর্দি, কাশি, শ্বাসকষ্ট, পাতলা পায়খানা এবং নিউমোনিয়া আক্রান্ত।।রোগীর চাপ বেশী থাকায় তাদের সেবা দিতে আমাদের অনেকটাই হিমশিম খেতে হচ্ছে তবে রোগীর স্বজনদের উচিত শীতের সময় বাচ্চাদের বাইরে বের না করা গরম পানি দিয়ে গোসল করানো এবং উষ্ণ গরম পানি পান করানো।


    এ জাতীয় আরো সংবাদ
    • আমাদের ইউটিউব পেজ ভিজিট করতে লগইন করুনঃ Grameen news24 Tv
    এক ক্লিকে বিভাগের খবর